ঘরে বসে চিপশপের সাথে নিরাপদ এবং লাভজনক ব্যবসা করুন

আপনি কি মাত্র ২৫০০০ টাকা নিয়ে ঘরে বসে আপনার ক্রয়কৃত পণ্যসমূহের ১০০% বিক্রয়ের নিঃশ্চয়তা, বিক্রয়ের উপর নির্দিষ্ট পরিমান লাভ, এবং ঝামেলাবিহিন হালালভাবে ব্যবসা করে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হবে হতে চান? তাহলে আর দেরি না করে এখনই রেজিস্ট্রেশন করুন এই লিংকে:

সর্ব নিম্ন মূল্যে পাইকারি পণ্য ক্রয়ের সুবিধাঃ 

ব্যাবসায় অধিক মুনাফার একটি প্রধান বিষয় হল অপেক্ষাকৃত কম মূল্যে পণ্য ক্রয় করতে পারা। কাজেই, আপনি যেন স্বাচ্ছন্দে অধিক মুনাফা করতে পারেন, সেই জন্য আপনাকে চিপশপের মাধ্যমে একই মানের পণ্য আপনার পাইকারী বিক্রেতার থেকেও কম মূল্যে পাইকারি পণ্য ক্রয়ের সুবিধা প্রদান করা হবে। 

অধিক চাহিদা সম্পন্ন পণ্য ক্রয়ের সুবিধাঃ 

আমরা আপনার এলাকার ক্রেতার ধরণ, জীবন ধারণ পদ্ধতি এবং পণ্যের চাহিদা পর্যালোচনা করে আপনার জন্য সুবিধাজনক পণ্য আমদানি/উৎপাদন করে পাইকারি সর্ব-নিম্ন মূল্যে আপনার নিকটে পৌঁছে দিবো। কাজেই, আপনার পণ্য আপনার ঘরে দীর্ঘদিন আটকে থাকবে না। 

আপনার ক্রয়কৃত সকল পণ্যের বিক্রয়ের সুবিধাঃ 

শতভাগ বিক্রয় করে দেয়ার নিঃশ্চয়তা আমরাই দিচ্ছি। অর্থ্যাৎ, পণ্য ক্রয় করার পর আপনাকে আর পণ্য বিক্রয় নিয়ে একটুও ভাবতে হবে না।  কারণ, চিপসপের নিজস্ব বিপণন ব্যাবস্থাপনায় নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আপনার সকল পণ্য বিক্রয় করে দেয়া হবে।  বিক্রয়ের জন্য আমাদের আছে:- 

  1. ইকমার্স ওয়েবসাইট 
  2. ফেইসবুক পেজ 
  3. ইউটিউব চেনেল 
  4. ইমেইল 
  5. মোবাইল এস এম এস
  6. সারাদেশব্যাপি ৫০,০০০+ সক্রিয় মার্কেটার 

আপনাকে যে বিষয়গুলো নিয়ে একটুও ভাবতে হবে না 

  1. ডোমেইন ফী বাবদ প্রতি বছর ১০০০ টাকা খরচ করতে হবে না 
  2. হোস্টিং ফী বাবদ প্রতি বছর ১০,০০০ টাকা খরচ করতে হবে না 
  3. হাতে গোণা ১০-১৫ টা পণ্যের জন্য নগদ ২৫,০০০ টাকা খরচ করে ইকমার্স ওয়েবসাইট তৈরী করতে হবে না 
  4. পণ্যের বর্ণনা, ছবি, দাম নিয়মিত আপডেট করার জন্য কোনো বেতনভুক্ত লোক নিয়োগের দরকার হবে না
  5. পণ্য বিক্রয়ের জন্য দৈনিক ১০০-৫০০ টাকার ফেইসবুক বুস্টিং করতে হবে না
  6. ফেইসবুক বুস্টিং এর জন্য কোনো পিকচার, কনটেন্ট তৈরী করতে হবে না 
  7. কি পণ্য বিক্রয় করবেন, কোথায় পণ্য পাবেন,  কিভাবে পণ্য পাবেন, কি ভাবে চাইনা থেকে পণ্য আনবেন, এ নিয়ে কিছুই ভাবতে হবে না
  8. অল্প পুঁজি যেমন, সর্ব নিম্ন ২৫০০০ টাকা (একটি ক্যাটাগরি) – থেকে সর্বোচ্চ ১০০০০০ টাকার (সর্বোচ্চ ৪টি ক্যাটাগরি) বেশি পুঁজি লাগবে না।
  9. চিপশপ থেকে পাইকারী পণ্য ক্রয় করে সেই পণ্য বিক্রয় নিয়ে / মূলধন হারানোর কোনো সম্ভাবনা নেই।    

২৫০০০-১০০০০০ টাকার পণ্য ক্রয়-বিক্রয় করে  প্রতি মাসে কত উপার্জন হতে পারে?

এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর এক কোথায় দেওয়া যাবে না। আপনার উপার্জনের পরিমান নির্ভর করবে কত টাকার পণ্য ক্রয় এবং কত টাকার পণ্য বিক্রয় হলো তার উপর। কাজেই, মাসিক আয়/উপার্জনের পরিমানটা সবসময় বিক্রয়ের উপর নির্ভরশীল বিধায় এটা পরিবর্তনশীল। 

তবে, একটা স্বচ্ছ ধারণা দেয়ার জন্য একটা খসড়া হিসেব দিচ্ছি, তবে এই হিসেবটা সঠিক নাও হতে পারে:

ধরুন, একটি পণ্য যেমন টি শার্ট এর পাইকারি ক্রয় মূল্য ২৫০ টাকা এবং খুচরা বিক্রয় মূল্য ৩০০ টাকা।  তাহলে নিট লাভ হলো: ৩০০-২৫০ = ৫০ টাকা। এইবার যদি আপনি ১০০ টি শার্ট ক্রয় করেন, এবং তা কোনো এক মাসের মধ্যে সব গুলো শার্ট বিক্রয় হয়। তাহলে, আপনার ওই মাসে নিট লাভ হবে ৫০ x ১০০ = ৫০০০ টাকা। আপনার পুঁজি ছিল মাত্র: ২৫০ x ১০০ = ২৫০০০ টাকা। 

পণ্যের ধরণ অনুযায়ী দাম কম-বেশি হতে পারে, আবার পাইকারি ক্রয় মূল্যের সাথে বিক্রয় মূল্যের পার্থক্য আরও বেশি বা কম হতে পারে। আবার, একই মাসে সকল পণ্য বিক্রয় নাও হতে পারে আবার দ্বিগুণও বিক্রয় হতে পারে। কাজেই, ক্রয়-বিক্রয়ের পরিমানের উপর আপনার কোন একটি নির্দিষ্ট মাসের লাভের পরিমান উঠা-নামা করতে পারে। 

আবার ধরুন, আপনি একই জাতের ১০০ টি পণ্য ক্রয়ের পরিবর্তে যদি ৪ (চার) জাতের একশত করে মোট  ৪০০ (চারশত) পণ্য পাইকারি ক্রয় করেন, আর ওই মাসে যদি প্রায় সকল পণ্যই বিক্রয় হয়, তাহলে ওই মাসে আপনার প্রায় চার গুন প্রফিট অর্থাৎ ২০,০০০ টাকাও হতে পারে। 

তবে, ব্যাবসার নিয়ম অনুযায়ী আপনি যদি প্রতি ১৫ দিন বা ৩০ দিন অন্তর অন্তর পণ্য ক্রয় ও বিক্রয় করতে থাকেন, তাহলে, আস্তে আস্তে আপনার  ক্রেতা বৃদ্ধি পাবে, এবং আপনার ব্যাবসাও বৃদ্ধি পাবে।  

পণ্য যে বিক্রয় হবে, এর কোনো নিশ্চয়তা কি আছে?

দেখুন, পণ্য যেন বিক্রয় হয়, তাই সঠিক পণ্য  নির্বাচন করার জন্যই  চিপশপের ১৫ জন এক্সপার্ট মার্কেট অ্যানালাইজার আছেন। আর তাছাড়া, পণ্য বিক্রয় না হলে তো আপনাদের নিকট বিক্রয়কৃত পণ্যগুলো ফেরত নিয়ে আপনাদের টাকা ফেরত দেয়া হবে।  কাজেই, আপনাদের তো কোন আর্থিক ঝুঁকি নাই। যেখানে, চিপশপ পণ্য উৎপাদন/আমদানি করে সরাসরি নিজস্ব পরবহন খরচে আপনার বাসায় পৌঁছে দিচ্ছে। আবার নিজস্ব খরচে বিজ্ঞাপন ও আপনার ক্রেতার নিকট পণ্য সরবরাহ করছে, সেখানে তো আপনার কোনো দুঃশ্চিন্তা করার কথা না।  যারা সত্যিকার অর্থে খুব অল্প পুঁজি দিয়ে কোনো প্রকার আর্থিক, শারীরিক, মানসিক ক্ষতির ঝুঁকি না নিয়ে ঘরে বসে দৈনিক মাত্র ২০-৩০ মিনিট সময় দিয়ে নিশ্চিন্তে কিছু অর্থ উপার্জন করতে চায়, তাদেরকে সহযোগিতা করার মধ্যদিয়ে সবাইকে কম মূল্যে পণ্য সরবরাহ করা।  

ক্রয়-বিক্রয় পার্টনারশিপ এ ব্যাবসা করতে চাই, কিভাবে শুরু করবো?

আপনি যদি চিপশপের সাথে ক্রয়-বিক্রয় পার্টনার হতে চান, তাহলে আপনাকে একটি নির্দিষ্ট ফর্ম পূরণ করে, ব্যাবসায়ীক শর্তসমূহ পূরণ করে নির্দিষ্ট পরিমান পণ্যের জন্য টাকা চিপশপের ব্যাঙ্ক একাউন্টে জমা দিতে হবে।  আপনার টাকা ব্যাংকে জমা হওয়ার ৭-১৫ দিনের মধ্যে আপনার  বাসায় পণ্য চলে যাবে। সেই সাথে  চিপশপের লোগো সম্বলিত নির্দিষ্ট পরিমান মোড়ক দিয়ে দেয়া হবে। অতঃপর আপনার পক্ষ থেকে পণ্য বুঝে পাওয়ার স্বাক্ষরকৃত রিসিট আমাদের নিকট চলে আসবে। তারপর, আপনার পণ্যটি চিপশপ সহ অন্নান্য মিডিয়ার মাধ্যমে টার্গেট কাস্টমার এর নিকট প্রচার করা হবে। 

যখনি কোনো অর্ডার হবে, আপনাকে সাথে সাথেই এস এম এস এর মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হবে। আপনি মেসেজ পাওয়া মাত্র পণ্যটি মোড়কজাত করে প্রস্তুত রাখবেন। যথাসময়ে চিপশপের একজন ডেলিভারিম্যান আপনার বাসা থেকে একটি স্লিপ দিয়ে পণ্য নিয়ে ক্লায়েন্টকে দিয়ে টাকা চিপশপের একাউন্ট এ জমা দিবে। আর মাসের শেষে ১-৫ তারিখের মধ্যে আপনার নিট লাভ আপনার ব্যাংক একাউন্টে / বিকাশ একাউন্টে চলে যাবে।   এক্ষত্রে আপনার মূলধন ফেরত দেয়া হবে না। মূলধন ফেরত নিতে হলে, নতুন কোনো পণ্য ক্রয়ের ৭ দিন পূর্বেই ইমেইল দিয়ে মূলধন ফেরতের অনুরোধ করতে হবে। তা না হলে আপনার টাকা পুনরায় নতুন কোনো পণ্য ক্রয়ে বিনিয়োগ হয়ে যাবে এবং যথারীতি আপনার বাসায় পণ্য পৌঁছে যাবে। 

আমি কি আমার নিজের পছন্দের পণ্য ক্রয় করতে পারবো?

জি না, “ক্রয়-বিক্রয় পার্টনারশিপে” নিজস্ব পছন্দে পণ্য ক্রয়ের সুযোগ নাই। কারণ, “ক্রয়-বিক্রয় পার্টনারশিপ” প্রোগ্রামে পণ্য নির্বাচন, ক্রয়, বিজ্ঞাপন, বিক্রয়, সরবরাহ, ব্যাবসায়িক ঝুঁকি সবই চিপশপ বহন করছে। আপনি শুধু পণ্য ক্রয় করে শুধু সংরক্ষণ এবং অর্ডার হলে ডেলিভারিবয়কে যথাযথভাবে বুঝিয়ে দিবেন। 

আর যদি আপনি আপনার নিজস্ব কোনো পণ্য বিক্রয় করতে চান, তাহলে চিপশপে একটি ভেন্ডর শপ খুলে নিজে পণ্য আপলোড করে, নিজস্ব বিজ্ঞাপন খরচ করে পণ্য বিক্রয় করতে হবে। তবে পণ্য ডেলিভারির ক্ষেত্রে ডেলিভারিবয় এসে পণ্য নিয়ে যাবে।

Main Menu